করোনা আতঙ্কের মাঝেও গর্ভবতী মায়ের সেবা চলছে

প্রকাশিত: ৩:২৪ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

মহামারি করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত বিশ্বের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। বাংলাদেশেও কিছুটা হলেও এর প্রভাব পড়েছে। প্রভাব পড়বে এটাই স্বাভাবিক। তবে করোনা মোকাবিলায় হিমশিম খাওয়া স্বাস্থ্যখাতে এখনও আশার আলো দেখাচ্ছেন দেশের পরিবার কল্যাণ কর্মীরা। অন্যান্য হাসপাতালে সেবা না পেলেও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র থেকে শুরু করে সারা দেশের পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের মাঠ পর্যায় থেকে সেবা নিচ্ছেন মা ও নবজাতক।
পরিবার কল্যাণ কর্মীরা মাঠ পর্যায়ে বাড়ি বাড়ি পরিদর্শনের মাধ্যমে পরিবার পরিকল্পনা সেবা, মা ও শিশু স্বাস্থ্য এবং কিশোর-কিশোরী পরামর্শ সেবা, স্যাটেলাইট ক্লিনিক আয়োজন, ইপিআই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ, কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবাদান, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে সেবাদান, মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে সেবাদান ইত্যাদি কার্যক্রম করোনার সময়েও চলমান রয়েছে। ঝুঁকি নিয়ে মেডিকেল অফিসার, উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার, নার্স, পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা, পরিবার কল্যাণ সহকারী এবং পরিবার কল্যাণ পরিদর্শকরা সুরক্ষাসামগ্রী ব্যবহার করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সেবা কার্যক্রম নিরবচ্ছিন্নভাবে চালিয়ে যাচ্ছেন। এই সময়েও গর্ভবতী ও প্রসূতি মায়ের সেবা কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে চলমান রাখতে সামাজিক দূরত্ব মেনে স্যাটেলাইট ক্লিনিক পরিচালনা করা হচ্ছে। ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে প্রত্যেকটা সেবা কেন্দ্রের কার্যক্রম তদারকি করে পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের ‘অপারেশনাল কমিটি’। এছাড়া সেবা দিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীদের পরিবারকে সার্বিক সহযোগিতায় কুইক রেসপন্স টিম গঠন করা হয়। যারা করোনায় আক্রান্ত পরিবারকে সার্বিক সহযোগিতা করবেন।

সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন ও দেশের বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, করোনা দুর্যোগের মধ্যেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনের কাজ করছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। সরকারের টিকাদান কর্মসূচিতেও নিয়োজিত তারা। দেশের মানুষের সেবায় নিবেদিত কর্মীরা প্রতিদিন সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েই কাজ করছেন।