কোয়ারেন্টিন টাইমে একঘেয়েমি কাটানোর উপায়

প্রকাশিত: ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ১০, ২০২০

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে প্রতিদিন বিশ্বজুড়ে মারা যাচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। আক্রান্ত হচ্ছেন প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ। আর এটি থেকে বাঁচতে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশেই চলছে লকডাউন বা ঘরবন্দি জীবন। আর কারও মধ্যে করোনার সামাণ্য লক্ষণ দেখা দিলেই তিনি নিজেকে করছেন কোয়ারেন্টিন।

কোয়ারেন্টিন মানেই সম্পূর্ণ একা। পাশের ঘরেই হয়তো সবাই মিলে হাসছে বা গল্প করছে, অথচ যিনি কোয়ারেন্টিনে তিনি একা। এ পরিস্থিতিতে শারীরিক ও মানসিকভাবে হতাশা বা বোরিংনেস আপনার অনেক ক্ষতি করতে পারে।

তাই কোয়ারেন্টিনে থাকা লোকজনকে স্বাভাবিক থাকার চেষ্টা করতে হবে। পাশাপাশি নিজেকে উৎফুল্ল রাখতে হবে। ভুলে যান করোনা নামক দানবের কথা। কীভাবে ভুলবেন? চলুন জেনে নেয়া যাক কিছু টিপস:

সবার আগে স্বাস্থ্য: এ অবস্থায় নিজের স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিন যাতে আপনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠতে পারেন এবং আপনার নিঃসঙ্গ জীবনের অবসান ঘটে। সারাক্ষণ শুয়েবসে থাকার দরকার নেই। যতটা সম্ভব নিজের ঘরেই হাঁটাচলা করুন। হাঁটাচলা কম করলে আবার অন্য অসুখে আকান্ত হতে পারেন। চাইলে ঘরের মধ্যেই খেলাধূলা করারও চেষ্টা করতে পারেন। করতে পারেন হালকা কিছু ব্যায়াম।

কমিকস পড়ুন: মন হালকা রাখতে কমিকস বা কৌতুক পড়ুন। কারণ রসবোধ মানুষের আয়ু বাড়ায়। এছাড়া হাস্যরস আপনার জীবনের আকর্ষণ ধরে রাখতে সাহায্য করবে এবং দূর করবে কোয়ারিন্টিনের একাকীত্ব। সুতরাং পরিস্থিতিকে সহজভাবে দেখার চেষ্টা করুন।

মন ভালো রাখুন: আপনাকে মনে রাখতে হবে সমস্যার সূত্রপাত হবে আপনার মনের ভিতর থেকে। তাই মন ভালো রাখার বিকল্প কিছু নাই। কোয়ারেন্টিনে আপনি যদি সারাক্ষণ খারাপ দিকগুলো নিয়ে ভাবেন তাহলে তো একে জেলখানা বলে মনে হবে। তাই ভালো কিছু চিন্তা করুন। হতে পারে সেটা অতীতের কোনও আনন্দদায়ক স্মৃতি বা প্রিয় কোনও মানুষের সঙ্গে কাটানো সময় ।

মোবাইল বা নেটে যোগাযোগ করুন: আপনার এমন অনেক আত্মীয় ও বন্ধুবান্ধব রয়েছে যাদের সঙ্গে আপনি অনেকদিন যোগাযোগ রাখেননি। কেননা আপনি এতদিন খুব ব্যস্ত ছিলেন। এই সুযোগে তাদের সঙ্গে নতুন করে যোগাযোগ শুরু করুন।

বই ও ভিডিও: অনেকের বই পড়ার অভ্যাস আছে। যাদের নেই তারাও এই সুযোগে অভ্যাসটি রপ্ত করে নিতে পারেন। প্রিয়জনদের বলুন আপনার জন্য পছন্দনীয় কিছু বই জোগাড় করে দিতে। পাশাপাশি ভিডিওতে ভালো মুভি বা নাটক দেখতে পারেন। আমাদের দেশেই অনেক ভালো মানের নাটক হচ্ছে আজকাল, তাছাড়া হাসির নাটকও কিন্তু কম হয়নি। এগুলোর ভিডিও জোগাড় করে দেখুন। স্মার্টফোনেও পেয়ে যাবেন এমন অনেক নাটক।

এভাবে চললে কোথায় কখন যে কেটে যাবে কোয়ারেন্টিনের ১৪ দিন টেরই পাবেন না।