মিরপুর ইনডোর প্রস্তুত করা হচ্ছে ক্রিকেটারদের অনুশীলনের জন্য

প্রকাশিত: ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ৭, ২০২০
ফা্ইল ফটো: মিরপুর ইনডোর

করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ঝুঁকির কারণে ক্রিকেট খেলা বন্ধ অনেকদিন ধরে। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অনুশীলনও বন্ধ আছে করোনার কারণে। গৃহবন্দী অবস্থায় কাটছে ক্রিকেটারদের দিন।  গত ১৬ মার্চের পর থেকে মিরপুর স্টেডিয়াম কমপ্লেক্সে তালা ঝুলেছে।

মিরপুর স্টেডিয়াম কমপ্লেক্সের ইনডোর, আউটডোর,এ কাডেমী ভবন এবং জিমে ক্রিকেটারদের আনাগোনা নেই প্রায় ৮০ দিন হয়ে গেছে। প্রধান কিউরেটর গামিনি সিলভা শ্রীলংকায় অবস্থান করায় সীমিত মাঠকর্মী দিয়ে মাঝে মাঝে মাঠ পরিচর্যার কাজ চালিয়ে নিয়েছে বিসিবি’র গ্রাউন্ডস এন্ড ফ্যাসিলিটিজ বিভাগ।

আগামী আগষ্ট মাসে শ্রীলংকার বিপক্ষে তিন টেস্টের সিরিজ নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি এখনো। তবে দীর্ঘদিন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা মাঠের বাইরে থাকায় তাদেরকে ধীরে ধীরে অনুশীলনে ফেরানোর উপায় খুঁজছে বিসিবি।

আইসিসি’র গাইডলাইন মেনে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অনুশীলনে ফেরাতে ইতোমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে ইনডোর, আউটডোর। এই বর্ষা মৌসুমে স্বাস্থ্য বিধি মেনে ক্রিকেটাররা অনুশীলন শুরু করলে ইনডোর ব্যবহার করতে হবে তাদেরকে। তাই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে ইনডোরকে। ফ্লোর ম্যাট পরিষ্কার করে, নেট ঠিক-ঠাক করে, বোলিং মেশিন  প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মিরপুর স্টেডিয়ামের ইনডোর ইনচার্জ এবং সাবেক পেস বোলার মোর্শেদ চৌধুরী শনিবার প্রয়োজনীয় লোক-বল নিয়ে এই কাজটি করেছেন। এপ্রসংগে তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন- ‘‌গত তিন মাস তো ইনডোর পরিস্কার করা হয়নি, তাই ময়লা জমে গেছে। যে কোন সময়ে ক্রিকেটারদের অনুশীলনের জন্য ইনডোরটি প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা আসতে পারে। তাই আগে-ভাগে ইনডোর ঠিক করে রাখলাম।’ ইনডোরের দোতলায় কোচরা বসেন, সেই রুম, টয়লেটসহ সবকিছু পরিস্কার করা হয়েছে। পর্যাপ্ত স্যানিটাইজার সামগ্রী রাখা হয়েছে। ক্রিকেটাররা অনুশীলনে এসে সকল সুযোগ সুবিধা পাবেন। আউটডোরের অনুশীলনের জন্যও পিচগুলো প্রস্তুত করা আছে।’