৫০ হাজার টন গম আমদানির সিদ্ধান্ত 1

৫০ হাজার টন গম আমদানির সিদ্ধান্ত

দেশের খাদ্য নিরাপত্তা বাড়াতে আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে আরো ৫০ হাজার টন গম আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ জন্য মোট ব্যায় হবে ১১৪ কোটি টাকা।

বুধবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত বৈঠকে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবসহ মোট ৬টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে মোট ১০টি ক্রয় প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়। এর মধ্যে গৃহ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের একটি এবং স্থানীয় সরকার বিভাগের তিনটি প্রস্তাব আরো পরিমার্জনের জন্য ফেরত পাঠানো হয়েছে। এগুলো পরিমার্জনের পর আবার অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে বলে অর্থমন্ত্রী জানান।

বৈঠক শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে মোট পাঁচ লাখ টন গম আমদানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে সাড়ে তিন লাখ টন গম আমদানি করা হয়েছে। আরো ৫০ হাজার টন আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে আমদানি করা হবে। প্রতি টনের দাম পড়বে ২৬৮ ডলার। সে হিসেবে ৫০ হাজার টন আমদানি করতে ব্যয় হবে ১১৪ কোটি টাকা। সিঙ্গাপুর ভিত্তিক অ্যাগ্রো করপোরেশন এই গম সরবরাহ করবে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন ‘হাই-টেক পার্ক, সিলেট (সিলেট ইলেক্ট্রনিক্স সিটি)- এর প্রাথমিক অবকাঠামো নির্মাণ (১ম সংশোধিত)’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ভূমি উন্নয়ন ও ভূমি উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট কাজের মূল চুক্তি মূল্যের ১২ দশমিক ৮৮ শতাংশ অতিরিক্ত মূল্যের ভেরিয়েশন প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে মূল দরের চেয়ে অতিরিক্ত ১৭ কোটি ১৫ লাখ টাকা ব্যয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ’

মুস্তফা কামাল বলেন, ‘বৈঠকে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তুলাই এবং পুনর্ভবা নদীর নাব্যতা উন্নয়ন ও পুনরুদ্ধার শীর্ষক কাজের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ৪০ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। বাংলাদেশ নৌবাহিনী প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।’

এছাড়াও বৈঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের দুটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয় বলে অর্থমন্ত্রী জানান। তিনি বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের আওতায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন দেশের গুরুত্বপূর্ণ ১৫৬টি উপজেলা সদর/স্থানে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন স্থাপন শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ১৫টি প্যাকেজে ৩৪টি লটে ৩৪ প্রকার অগ্নি নির্বাপনী ও উদ্ধার সাজ-সরঞ্জাম ক্রয়ের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্পে ব্যয় হবে ৮৮ কোটি ৫০ লাখ ৪০ হাজার টাকা।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের বিদ্যমান পাসপোর্ট সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ডি লা রুয়ে ইউকে’র কাছ থেকে আগের চুক্তির ধারাবাহিকতায় এবং মূল চুক্তির মূল্যের দ্বিতীয় ভেরিয়েশনের মাধ্যমে দুই মিলিয়ন পাসপোর্ট বুকলেট এবং দুই মিলিয়ন লেমিনেশন ফয়েল ক্রয়ের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ জন্য ব্যয় হবে ৪০৩ কোটি ২৬ লাখ টাকা।’

এর আগে অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে পিপিপি’র অধীনে আউটার রিংরোড নির্মাণের একটি প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘পদ্মাসেতু চালু হলে প্রতিদিন রাজধানী ঢাকায় যে সংখ্যক যানবাহন ঢুকবে তাতে রাজধানীর ট্রাফিক জ্যাম বেড়ে যাবে। এ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আউটার রিংরোড নির্মাণের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। প্রস্তাবটি আরো পরিমার্জনের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে ফেরত পাঠানো হয়েছে।’

 

সুত্র : রাইজিংবিডি

Add your comment

Your email address will not be published.