১৪ দল-ঐক্যফ্রন্টের সংলাপ শুরু

১৪ দল-ঐক্যফ্রন্টের সংলাপ শুরু

চৌদ্দ দলীয় ঐক্যজোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে বহুল প্রত্যাশিত সংলাপ আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে শুরু হয়েছে।
গণভবন সূত্র জানায়, ‘সন্ধ্যা ৭টার দিকে সংলাপ শুরু হয়েছে।’
আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংলাপে ১৪ দলীয় ঐক্যজোটের ২৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। অপরদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয়ক ড. কামাল হোসেন ফ্রন্টের ১৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।
আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন চৌদ্দ দলীয় জোটের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, উপদেষ্টা আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, কাজী জাফরউল্লাহ, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়া, বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু, জেএসডি’র একাংশের নেতা মইনুদ্দিন খান বাদল, আইনমন্ত্রী এডভোকেট আনিসুল হক, আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, ড. মোহাম্মদ আবদুর রাজ্জাক ও রমেশ চন্দ্র সেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, আইন বিষয়ক সম্পাদক এস এম রেজাউল করিম।
ঐক্যফ্রন্ট প্রতিনিধি দলে বিএনপি’র পাঁচ জন নেতা রয়েছেন। তারা হলেন- মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার ও মির্জা আব্বাস।
প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন- জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নবগঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বানে সাড়া দিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচন প্রশ্নে সংলাপের জন্য ঐক্যফ্রন্টকে ক্ষমতাসীন জোটের সঙ্গে আলোচনায় বসতে আজ সন্ধ্যা ৭টায় গণভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানান।
ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম মুখ্য ব্যক্তিত্ব গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন গত ২৮ অক্টোবর সংলাপ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি পাঠালে এ বিষয়টি সামনে চলে আসে।
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এখন পর্যন্ত আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অংশগ্রহণমূলকভাবে
অনুষ্ঠানের জন্য ৭ দফা দাবি ঘোষণা করেছে।

সুত্রঃ বাসস

Add your comment

Your email address will not be published.