সাঁথিয়ায় দৃষ্টিনন্দন মুক্তমঞ্চ ‘স্বাধীনতা সোপান’ 1

সাঁথিয়ায় দৃষ্টিনন্দন মুক্তমঞ্চ ‘স্বাধীনতা সোপান’

নতুন প্রজন্মের মাঝে ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দিতে পাবনার সাঁথিয়ায় উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে নির্মিত হয়েছে দৃষ্টিনন্দন মুক্তমঞ্চ ‘স্বাধীনতা সোপান’।

এখানে সন্নিবেশিত করা হয়েছে বায়ান্ন’র ভাষা আন্দোলন থেকে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন তথ্য। বর্তমান প্রজন্মের কাছে শিক্ষনীয় হবে এই মুক্তমঞ্চ। আসছে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে এটি উদ্বোধন করা হবে।

চলতি বছরের প্রথম দিকে উপজেলা চত্ত্বরে এই মুক্তমঞ্চ নির্মাণের উদ্যোগ নেন সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম। নিজস্ব চিন্তা ও নিজ নকশায় মুক্তিযুদ্ধকে উপজীব্য করে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলা চত্ত্বরে স্থায়ী মুক্তমঞ্চের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করেন তিনি।

নির্মিত মুক্তমঞ্চটির দৈর্ঘ্য ২৬ ফুট (২৬ মার্চ অনুসারে) এবং প্রস্থ করা হয়েছে ১৬ ফুট (১৬ ডিসেম্বর অনুসারে)। মূল মঞ্চে আড়াআড়ি ২১টি দাগ কেটে ২১শে ফেব্রুয়ারিকে বোঝানো হয়েছে। মঞ্চে উঠতে ও নামতে পাঁচটি ধাপ রয়েছে, যা দ্বারা স্বাধীনতার ৫টি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ বোঝানো হয়েছে। দু’পাশের ছয় ফুট লম্বা দেয়াল ছয় দফা আন্দোলন অনুসারে।

এছাড়াও দু’পাশে সাত ফুট লম্বা দু’টি দেয়াল দ্বারা যথাক্রমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ ও সাত জন বীরশ্রেষ্ঠকে বোঝানো হয়েছে। সাড়ে নয় ফুট দু’টি পিলার দ্বারা সাড়ে নয় মাস যুদ্ধ এবং ১১ ফুট পিলারের ব্যবধান দ্বারা ১১টি সেক্টর উল্লেখ করে বাংলাদেশের মানচিত্রের ম্যুরাল দেখানো হয়েছে। যার সর্বপ্রথমে রয়েছে দেশ ও জাতির প্রতীক জাতীয় পতাকা।

এর দৃষ্টি নন্দন নির্মাণ শৈলী সকল শ্রেণি পেশার মানুষের নিকট আকর্ষনীয় হয়ে উঠছে। যা থেকে প্রজন্মের পর প্রজন্ম স্বাধীনতা, ভাষা আন্দোলন ও ৬ দফাসহ স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস জানতে পারবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘মুক্তমঞ্চ ‘স্বাধীনতা সোপান’ এর মাধ্যমে স্বাধীনতা সংগ্রামে ইতিহাস নতুন প্রজন্মকে জানাতে ও উদ্বুদ্ধ করতে আমি চেষ্টা করেছি মাত্র। যখন মুক্তিযোদ্ধারা থাকবে না, ঠিক তখন যেন জাতি তার স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস জানতে পারে সে জন্যই এ মুক্তমঞ্চটি নির্মাণে আগ্রহী হই।’

সুত্র : রাইজিংবিডি

Add your comment

Your email address will not be published.