barnikat

যেখানে যাব, সেখানেই বাংলাদেশের সফলতার গল্প বলব: বার্নিকাট

প্রায় ৪ বছর ধরে বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট। দায়িত্ব শেষে আজ বিকালে নিজ দেশ যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যাচ্ছেন তিনি। তবে তিনি যেখানেই যাবেন সেখানেই বাংলাদেশের সফলতার গল্প করবেন বলে জানায়।

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) দেশ ছাড়ার আগে বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে বার্নিকাট বলেন, বাংলাদেশ একটি সফল দেশ। যেখানে যাব, সেখানেই বাংলাদেশের সফলতার গল্প বলব।

পাশাপাশি নিজ দায়িত্ব সম্পর্কে তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নির্দিষ্ট কারো প্রতি আলাদা কোনো সমর্থন নেই। বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক উন্নয়নের লক্ষ্যেই আমি কাজ করেছি। তাছাড়া গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া এবং বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র যে আদর্শ নিয়ে চলে সেই অনুযায়ীই আমি কাজ করেছি।

এদিকে আসন্ন নির্বাচন সম্পর্কে তিনি বলে, বরাবরের ন্যয় অবাধ, নিরপেক্ষ, গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনই হবে বলে আশা করছি।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বার্নিকাট বলেন, রোহিঙ্গা সংকটকে ওয়াশিংটন গুরুত্বসহকারেই দেখছে। সে কারণেই তাদের মানবিক সহায়তা অব্যাহত রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৫ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ১৫ তম রাষ্ট্রদূত হিসেবে ঢাকায় আসেন বার্নিকাট। অবশেষে ৩৭ বছরের চাকরি জীবন থেকে অবসর নিতে যাচ্ছেন তিনি। গত ৪ বছর বাংলাদেশে কাজ করাকালীন এদেশের সংস্কৃতিকে অনুধাবন করতে চেষ্টা করেছেন তিনি। মাঝেমধ্যে চেষ্টা করেছেন একটু-আধটু বাংলা বলারও। পরেছেন বাঙালি নারীর প্রিয় পোশাক শাড়ি। বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনেও এসেছেন বাঙালি সাজেই।

এদিকে বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ পেতে যাচ্ছেন আর্ল রবার্ট মিলার। ইতোমধ্যে মার্কিন সিনেটে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে অনুমোদনও পেয়েছেন তিনি। আগামী ১৮ নভেম্বর তিনি ঢাকায় আসবেন। এর পূর্বে আফ্রিকার দেশ বতসোয়ানায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন মিলার।

সুত্রঃ pbd.news

Add your comment

Your email address will not be published.