দেশে তৈরি ওয়ালটনের সাশ্রয়ী মূল্যের নতুন স্মার্টফোন 1

দেশে তৈরি ওয়ালটনের সাশ্রয়ী মূল্যের নতুন স্মার্টফোন

দেশে তৈরি সাশ্রয়ী মূল্যের নতুন আরেকটি স্মার্টফোন বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন। যার মডেল ‘প্রিমো জিএইটআই’। সুদৃশ্য ডিজাইনের বড় পর্দার ফুল-ভিউ ডিসপ্লে, শক্তিশালী র‌্যাম, রম এবং ক্যামেরাসহ বিভিন্ন আকর্ষণীয় ফিচারসমৃদ্ধ ফোনটির দাম মাত্র ৬ হাজার ৩৯৯ টাকা।

ওয়ালটন সেল্যুলার ফোন বিক্রয় বিভাগের প্রধান আসিফুর রহমান খান জানান, কম বাজেটের মধ্যে দেশের বাজারে ‘প্রিমো জিএইটআই’ সেরা স্মার্টফোন। মাল্টি টাস্কিং সুবিধার ফোনটির প্রয়োজনীয় গতি নিশ্চিতে রয়েছে ১.৩ গিগাহার্জের কোয়াড কোর প্রসেসর এবং ২ জিবি ডিডিআর৩ র‌্যাম। প্রাণবন্ত ভিডিও ও গেমিং অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে মালি-টি৮২০। প্রয়োজনীয় ফাইল সংরক্ষণে রয়েছে ১৬ জিবি স্টোরেজ। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ৬৪ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

এই ফোনে ব্যবহৃত হয়েছে নিউ জেনারেশন ১৮:৯ রেশিওর ৫.৩৪ ইঞ্চির এফডব্লিউভিজিএ প্লাস আইপিএস ডিসপ্লে। পর্দার রেজুলেশন ৯৬০ বাই ৪৮০ পিক্সেল। রয়েছে ২.৫ডি কার্ভড গ্লাসও। ফলে ইন্টারন্টে ব্রাউজিং, গেম খেলা কিংবা ভিডিও দেখায় গ্রাহক পাবেন অনন্য অভিজ্ঞতা।

ফোনটির পেছনে ব্যবহার করা হয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত বিএসআই ৮ মেগাপিক্সেল অটো ফোকাস ক্যামেরা। আকর্ষণীয় সেলফির জন্য সামনে রয়েছে বিএসআই ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরার বিশেষ ফিচারের মধ্যে রয়েছে ডিজিটাল জুম, ফেস ডিটেকশন, ফেস বিউটি, প্যানোরমা, এইচডিআর, নাইট মোড, সেলফ টাইমার, অটো-ফোকাস, বোকেহ-ইফেক্ট, কিউআর কোড স্ক্যানার ইত্যাদি।

অ্যান্ড্রয়েড ওরিও ৮.১ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত স্মার্টফোনটির প্রয়োজনীয় পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য রয়েছে ২২৫০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারি। হালকা নীল এবং কালো রঙের ফোনটিতে ফেস আনলক প্রযুক্তি দেয়া হয়েছে। ফলে ব্যবহারকারী ফোন আনলক করতে তার মুখাবয়ব ব্যবহার করতে পারবেন।

থ্রিজি সাপোর্টেড ফোনটিতে একসঙ্গে ব্যবহার করা যাবে দুটি সিম। কানেক্টিভিটির জন্য আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, ল্যান হটস্পট, ওটিএ এবং মাইক্রো ইউএসবি সুবিধা, জিপিএস, এ-জিপিএস নেভিগেশন, অ্যাকসিলারোমিটার (থ্রিডি) ইত্যাদি। মাল্টিমিডিয়া ফিচার হিসেবে আছে ফুল এইচডি ভিডিও প্লে-ব্যাক ও রেকর্ডিং সুবিধাসহ এফএম রেডিও।

বাংলাদেশে তৈরি এই স্মার্টফোনে রয়েছে বিশেষ রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা। স্মার্টফোন কেনার ৩০ দিনের মধ্যে ত্রুটি ধরা পড়লে ফোনটি পাল্টে ক্রেতাকে নতুন আরেকটি ফোন দেয়া হবে। এছাড়াও, ১০১ দিনের মধ্যে প্রায়োরিটি বেসিসে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ক্রেতা বিক্রয়োত্তর সেবা পাবেন। তাছাড়া, স্মার্টফোনে এক বছরের এবং ব্যাটারি ও চার্জারে ছয় মাসের বিক্রয়োত্তর সেবা তো থাকছেই।

উল্লেখ্য, দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ড আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যায় সব মডেলের ওয়ালটন স্মার্টফোন। একই সঙ্গে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধায়ও কেনার সুযোগ থাকছে। সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবার জন্য রয়েছে দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিস নেটওয়ার্ক।

সুত্র : রাইজিংবিডি

Add your comment

Your email address will not be published.