চাঁপাইনবাবগঞ্জে ভুট্টার চাষে আগ্রহ বাড়ছে চাষিদের 1

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ভুট্টার চাষে আগ্রহ বাড়ছে চাষিদের

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ক্রমেই বাড়ছে ভুট্টার আবাদ। ভালো ফলন ও বাজারে কাঙ্খিত দাম পাওয়ায় ভুট্টা চাষে কৃষকদের মধ্যে আগ্রহ বাড়ছে। ধানের চেয়ে লাভজনক হওয়ায় চাষিরা বোরো চাষ কমিয়ে ভুট্টা চাষে ঝুঁকছে। কৃষকরা বলছেন ধানের ন্যায্য পাচ্ছেনা বলেই ভুট্টা চাষে ঝুকছেন তারা। অনূকূল আবহাওয়ায় ভালো ফলনের আশা করছেন কৃষকরা। এবার ভুট্টার উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন কৃষি বিভাগ। তথ্যমতে, জেলায় এবার রেকর্ড পরিমান জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এবার ৬ হাজার ২৫৫ একর জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায়- ২ হাজার ১৮০ একর, শিবগঞ্জ উপজেলায় ৩ হাজার ৯১৫ একর, নাচোল উপজেলায় ৫ একর, গোমস্তাপুর উপজেলায় ৮০ একর ও ভোলাহাট উপজেলায় ৭৫ একর জমিতে ভুট্টার চাষ হচ্ছে। গত বছর ৫ হাজার ৭৫০ একর জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছিল। গতবছরের তুলনায় এবার প্রায় ৫০০ একর বেশি জমিতে ভুট্টার চাষ হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সুপার সাইন, ২৭৬০, ২৭৯৬, ৭৭২০, ৯৮৭, ৯৮১, ডন, পালোয়ান, এলিট, কোহিনুর, কাবেরী, আমেরিকান পাইয়োনিয়ার পি ৩৩৫৫, এনকে ৪০, মিরাক্কেল, লালতীর, শাহেনশাহ জাতের হাইব্রিড ভুট্টা চাষ হচ্ছে। জাতগুলি হাইব্রিড হওয়ায় ফলনও ভাল হয়।

হাইব্রিড জাতের ভুট্টার হেক্টর প্রতি ফলন সাড়ে ৮ মেট্রিক টন বলে জানান কৃষি বিভাগ। ভুট্টা চাষে বিঘা প্রতি চাষীদের খরচ হয় প্রায় ২৪ হাজার টাকা। গত মৌসুমে ভুট্টা বিক্রি হয়েছে ৭২০ টাকা থেকে ৮৫০ টাকা পর্যন্ত।
সদর উপজেলার ইসলামপুর পোঁড়াগ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে ভুট্টা চাষী মোহসিন আলী জানান, তিনি এবছর ৪ বিঘায় এলিট জাতের ভুট্টা চাষ করছেন। অন্যান্য ফসল চাষের চেয়ে ভুট্টা চাষ অনেক লাভজনক, তাই তিনি ভুট্টা চাষ করছেন বলে জানান।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ১১ নং ওয়ার্ডের দক্ষিন চরাগ্রাম এলাকার আনিসুরের ছেলে তরিকুল ইসলাম বলেন, তিনি ১৯৮২ সাল হতে ভুট্টা চাষের সাথে জড়িত। তিনিই জেলায় সর্বপ্রথম ভুট্টার চাষ শুরু করেছেন বলে দাবী করে বলেন, এ বছর তিনি ২২ বিঘা জমিতে শাহেনশাহ, এনকে-৪০, এলিট ও লালতীর জাতের হাইব্রিড ভুট্টা চাষ করেছেন। চাষাবাদ সুবিধা, লাভজনক হওয়ায় তিনি ভুট্টা চাষ করেন বলে জানান। তিনি আরও জানান, ভুট্টা চাষে যেকোন পরামর্শ কৃষি অফিসারগণ দিয়ে থাকেন, তাতে তিনি খুব খুশী।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের কলপাড়া এলাকার মৃত মোহর আলীর ছেলে নাইমুল হক বলেন, তিনি এবার ২০ বিঘা জমিতে এলিট, গৌরব ও লালতীর জাতের ভুট্টা চাষ করছেন। চাষাবাদ খরচ কম এবং লাভজনক হওয়ায় তিনি ভুট্টা চাষ করছেন ২০১০ সাল থেকে। ভুট্টা চাষে কৃষি অফিসের সহযোগিতার কথাও জানান তিনি।

ভুট্টা চাষের ভবিষ্যত সম্ভাবনা নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মোঃ মঞ্জুরুল হুদা বলেন, ভুট্ট চাষাবাদ লাভজনক। এটা পরিবেশ বান্ধবও বটে। এতে পানির ব্যবহার কম। ফলন, পুষ্টিমান এবং বাজারদর বিবেচনায় এটি লাভজনক। ভুট্টার চাষ বাড়ছে, ভবিষ্যতে আরও বাড়বে। এর চাষাবাদ বাড়াতে প্রদর্শনী স্থাপনসহ সকল কারিগরী সহায়তা দান অব্যাহত আছে এবং থাকবে।

সুত্র : একুশে টেলিভিশন

Add your comment

Your email address will not be published.