খাবার অপচয় রোধ করবে স্মার্ট বিন 1

খাবার অপচয় রোধ করবে স্মার্ট বিন

প্রতিদিন যেসব খাবার ফেলে দেয়া হয়, সেগুলোর মাঝে ভালো খাবার আছে কি না, তা শনাক্ত করতে বাজারে এসেছে স্মার্ট বিন। একটি ক্যামেরার মাধ্যমে খাবার শনাক্ত করে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে স্মার্ট বিন খাবার নষ্ট হওয়া রোধে বড় ভূমিকা রাখতে চলেছে।

বৃটেনের মিল্টন কিনেস এলাকায় দ্য উইন নাউ নামের একটি টেকনোলজি ফার্ম আছে। সুইডেনের মাল্টিন্যাশনাল গ্রুপ আইকেইএ কে সঙ্গে নিয়ে এই প্রতিষ্ঠানটি স্মার্ট সব প্রডাক্ট তৈরি করছে বৃটেন ও আয়ারল্যান্ডের জন্য। এবার এই দুই প্রতিষ্ঠান বাজারে নিয়ে এসেছে দ্য উইন নাউ ভিশন বিন। এই স্মার্ট বিন একটি ক্যামেরা ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে কোন কোন খাবার বেশি অপচয় হচ্ছে তা জানাতে পারে।

বিশ্বজুড়ে বিশেষ করে উন্নত বিশ্বে খাবারের অপচয় একটা বড় ইস্যু হয়ে উঠেছে এখন। দ্য উইন নাউ ভিশন বিন নামের এই স্মার্ট বিন এখন সে সমস্যা দূর করতে ভূমিকা রাখতে চলেছে। এই স্মার্ট বিন সিস্টেমে ক্যামেরা ছাড়াও বেশ কিছু স্মার্ট স্কেল আছে, যা চালকবিহীন গাড়িতে দেখা যায়। প্রতিদিন কোন কোন খাবার ফেলে দেয়া হয়, তা নিয়ে গবেষণা করে ওই তথ্যের ভিত্তিতে সেসব খাবারের আর্থিক ও পরিবেশগত ক্ষতি কতোটুকু তা নির্ণয় করে এই স্মার্ট বিন, যাতে এরপর ওই খাবার অতিরিক্ত কেনার আগে আপনি আবারো ভাবতে পারেন।

প্রস্তুতকারী কোম্পানি উইন নাউ জানিয়েছে, এই স্মার্ট বিন আপাতত বিভিন্ন কমার্শিয়াল কিচেনে দেখা গেলেও ভবিষ্যতে মানুষের ঘরে পৌঁছে দিতে চান তারা। যেকোনো কিচেনের সব খাবার উপকরণ শনাক্ত করতে পারে এই স্মার্ট বিন। বর্তমানে মানুষের সহায়তায় তৈরি করা একটি শর্টলিস্ট শনাক্ত করতে পারে এটি। ভবিষ্যতে স্মার্ট বিনটি নিজেই সব খাবার শনাক্ত করতে পারবে বলে কোম্পানিটি জানিয়েছে।

এই স্মার্ট বিন কিচেনের বাবুর্চিকে এটা জানিয়ে দেবে যে, কিচেনে কোন কোন খাবার অপচয় হচ্ছে বেশি। এতে করে খাবার অপচয় ও ব্যয় কমবে।

বিশ্বজুড়ে প্রতি বছর কয়েকশ কোটি ডলার খাবার অপচয় হয়। এই ক্ষেত্রে খাবার অপচয় রোধে উইন নাউ ভিশন নামের স্মার্ট বিন বড় ধরনের ভূমিকা রাখতে পারে বলে জানিয়েছে কোম্পানিটির সিইও মার্ক জোরনেস। কোম্পানিটি বলছে তাদের স্মার্ট প্রডাক্টের মাধ্যমে প্রতি বছর ৩০ মিলিয়ন ডলার খাবার অপচয় রোধ হচ্ছে। এই স্মার্ট বিনের মাধ্যমে প্রতি বছর ২৩ মিলিয়ন বিভিন্ন ধরনের খাবার অপচয় ঠেকানো সম্ভব হবে।

সূত্র: ডেইলি মেইল

Add your comment

Your email address will not be published.