ট্রাফিক পুলিশ

ট্রাফিক পুলিশ কনস্টবল কালামের মানবিকতা

ধূলা-বালি, রোদ-বৃষ্টি কিংবা যে কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ যাই হোক না কেন রাস্তায় ঠায় দাঁড়িয়ে দায়িত্ব পালন করতে হয় ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের। এতো কষ্টের মাঝেও অনেক সময় তারা মানবিকতার হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসে অসহায় বিপদগ্রস্থ মানুষের সেবায়।

এমনই এক ঘটনা ঘটেছে আজ (০৪ নভেম্বর) রবিবার রাজধানীর শাহবাগ মোড় এলাকায়। রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আল-হাইআতুল উলয়া লিল-জামি’আতিল কওমিয়া বাংলাদেশ আয়োজিত ‘শোকরানা মাহফিলে’ অংশগ্রহণের জন্য কুমিল্লা থেকে আসেন আনুমানিক ৭৫ বছর বয়সের এক বৃদ্ধ। তার সাথের অন্যান্য সঙ্গীদের হারিয়ে হন্যে হয়ে খুঁজছিলেন তিনি। খুঁজে না পেয়ে তিনি কুমিল্লা ফিরে যাওয়ার জন্য শাহবাগ মোড়ে আসেন। শাহবাগ মোড় থেকে গাড়ি করে গুলিস্তান যাবেন সেখান থেকে পরে বাসে করে কুমিল্লা যাবেন। তিনি অতি বৃদ্ধ হওয়ায় কোন কিছু বুঝে উঠতে পারছিলেন না। সে সময় অন্যান্য দিনের মতোই শাহবাগ মোড়ে দায়িত্ব পালন করছিলেন ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগের কনস্টবল-৮৯৯২ মোঃ কালাম। বৃদ্ধ লোকটি কোন উপায়ান্তর না দেখে পুলিশ সদস্য কালামকে কুমিল্লা যাওয়ার উপায় জিজ্ঞাসা করে। বৃদ্ধ লোকটিকে দেখে কালামের মায়া হয়। সে বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নিয়ে উনাকে সঠিকভাবে গাড়িতে তোলে দেয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু ‘শোকরানা মাহফিলে’র জন্য রোড ডাইভারশন থাকায় শাহবাগ এলাকায় কোন প্রকার গাড়ি ছিল না। তৎক্ষনাৎ সেখান দিয়ে স্কুটি চালিয়ে যাচ্ছিলেন একজন। কালাম স্কুটি চালককে থামিয়ে বৃদ্ধ লোকটিকে গুলিস্তান বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছে দেয়ার অনুরোধ করেন। লোকটি রাজি হলে কালাম বাবার আদরে বৃদ্ধ লোকটিকে কোলে করে স্কুটিতে বসিয়ে দেন। এ সময় বৃদ্ধ লোকটি ঠিকমতো স্কুটির পাদানিতে পা রাখতে পারছিল না। এটা দেখে কালাম নিজের হাতে বৃদ্ধ লোকটির দুই পা গাড়ির পাদানিতে সুন্দর করে বসিয়ে দেন।

ট্রাফিক পুলিশ কনস্টবল কালামের মানবিকতা 1

আনন্দ ও কৃতজ্ঞতায় তখন জলজল করছিল বৃদ্ধের চোখ দুটি। কালামের কাছ থেকে বাবার মতো পরম শ্রদ্ধা পেয়ে বৃদ্ধটি যেন একেবারে নির্বাক হয়ে গেছেন। তিনি বললেন অনেককে জিজ্ঞাসা করেছি কেউই কোন সদুত্তর দিতে পারেনি। পুলিশ সদস্য কালামকে বলতেই সে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসেন। এজন্য বৃদ্ধ লোকটি যাওয়ার সময় ট্রাফিক কনস্টবল কালামকে প্রাণভরে দোয়া করে যান।

সমস্ত বিষয়টা ধরা পরে সেখানে দায়িত্বরত ডিএমপি নিউজের ফটোগ্রাফার রুবেল সরকারের ক্যামেরায়। তিনিও ‘শোকরানা মাহফিল’ উপলক্ষে শাহবাগ মোড়ে ডিউটিরত ছিলেন। তার সামনে এমন একটি মানবিক ঘটনা ঘটতে দেখে সাথে সাথেই তার হাতে থাকা ক্যামেরায় বন্দি করে নেন সমস্ত বিষয়টি।

সূত্র – ডিএমপি নিউজ

Add your comment

Your email address will not be published.